সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

প্রিয় পাঠক,সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা সম্পর্কে জানতে চাচ্ছেন। তাহলে এই আর্টিকেলটি আপনাদের জন্য। চলুন এবার সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা কি এবং বাদাম কখন খেতে হয়,কিভাবে খেলে ভালো উপকার পাওয়া যায় তা আমরা সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা এই আর্টিকেলটি মনোযোগসহ পড়ে জেনে নিবো।
সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা
পুষ্টিগুণে ভরপুর এবং স্বাস্থ্যর জন্য উপকারী হল বাদাম। যা আমরা বিভিন্নভাবে খেয়ে থাকি।কিভাবে খেলে বেশি উপকার পাওয়া যায় তা জানতে সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা এই আর্টিকেলটি বিস্তারিত পড়ে ফেলুন।

ভূমিকা

ফুড অভ্যাস এমন একটি জিনিস যা আপনাকে সুস্থ রাখতে পারে তাই আপনি কি খাচ্ছেন কি পান করছেন তার উপর আপনার ডায়েট নির্ভর করে এবং লাইফস্টাইল যদি স্বাস্থ্যকর হয় তবে আপনার জীবন আরো স্বাস্থ্যকর হবে। এক্ষেত্রে সমপরিমাণ প্রোটিন,ভিটামিন,কার্বোহাইড খেতে বলা হয়। এমন সুষম খাবার সব সময় পাওয়া নাও যেতে পারে এবং অনেক দামীও হতে পারে। তেমনি একটি সুষম খাবার তা আমরা সকলেই জানি তা হল কাঁচা বাদাম।
পুষ্টিগুণ এবং শারীরিক দিক থেকে দেখতে গেলে এর উপকারিতা অপরিসীম। এতে রয়েছে শরীর মজুদ করার জন্য প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন,ক্যালসিয়াম,ভিটামিন ই,ফাইবার,সেলেনিয়াম,ভিটামিন সি,অ্যান্টিঅক্সাইড,এমাইনো এসিড,পটাশিয়াম এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড।

বাদাম কাঁচা খেলে কি হয়

কাঁচা বাদামে রয়েছে প্রচুর পুষ্টিগুণ। যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই উপকারী। তাই নিয়মিত কাঁচা বাদাম খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। এবার জেনে নেই,কাঁচা বাদাম খেলে কি হয়। কাচা বাদাম খেলে হাড়ের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়,হাড় শক্ত হয়,হাড়ের ক্ষয় রোধ হয়,মস্তিষ্কের ক্ষমতা বৃদ্ধিতে বিশেষভাবে সহায়তা করে। ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে না। ভালো কোলেস্টরেলের মাত্রা বৃদ্ধি করে এবং খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা হ্রাস করে। এবং তার সাথে সাথে হার্টকে সুস্থ রাখতে সহায়তা করে।

বাদাম কখন খেতে হয়

শরীর সুস্থ রাখতে নিয়ম করে প্রতিদিন বাদাম খাওয়া উচিত। বাদাম পুষ্টিকর এবং উপকারী বলেই যে সব সময় বেশি বেশি খেতে হবে তা কিন্তু না। বাদাম নির্দিষ্ট পরিমাপ অনুযায়ী খেতে হবে। এবার চলুন কখন কিভাবে বাদাম খেলে আমরা উপকৃত হবো। বাদাম খাওয়ার সঠিক সময় হল ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে।

একটি ছোট পাত্রে অথবা গ্লাসে পানি রেখে তার মধ্যে ৮ থেকে ১০ টা কাঁচা বাদামের কোয়া সারারাত ভিজিয়ে রাখুন । এবং সকালবেলা উঠে ভিজানো পানি সহ অথবা পানি ছাড়া খেয়ে ফেলুন। নিয়ম করে প্রতিদিন খেলে শরীর স্বাস্থ্য অনেক ভালো থাকবে।

কত ধরনের বাদাম আছে

প্রকৃতিতে বিভিন্ন ধরনের বাদাম রয়েছে। তবে আমাদের দেশে চার ধরনের বাদাম লক্ষ্য করা যায়।
  • কাঠ বাদাম
  • চিনা বাদাম
  • কাজু বাদাম
  • পেস্তা বাদাম

সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা

বাদাম কাঁচা খাবেন না ভাজা খাবেন। কাঁচা বাদাম খাওয়া উপকারী না ভাজা বাদাম খাওয়া উপকারী এ নিয়ে অনেকের মনে প্রশ্ন রয়েছে। তবে পুষ্টিবিদদের মতে,কাঁচা বাদামে অনেক গুণ রয়েছে। পুষ্টিগুণ এবং শারীরিক দিক থেকে দেখতে গেলে এর উপকারিতা অপরিসীম। এতে রয়েছে শরীর মজুদ করার জন্য প্রচুর পরিমাণ প্রোটিন ক্যালসিয়াম,ভিটামিই, ফাইবার,সেলেনিয়াম,ভিটামিন সি,অ্যান্টিঅক্সাইড, এমাইনো এসিড,পটাশিয়াম এবং ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। চলুন এবার জেনে নেই,

  সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা কি কি

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধিঃ বিশেষজ্ঞদের মতবাদে,প্রতিদিন যারা নিয়ম করে কাঁচা বাদাম খায় তাদের শরীর অন্যদের তুলনায় রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেশি থাকে।

ডায়াবেটিস মুক্তিঃ প্রতিদিন নিয়ম করে রাতে ভিজিয়ে রেখে সকালে চিনা বাদাম খেলে রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণ থাকে। এভাবে চিনা বাদাম খেলে ডায়াবেটিকস প্রতিরোধ হয়ে থাকে।

ক্যান্সার প্রতিরোধঃ বাদামে অ্যান্টিঅক্সাইড রয়েছে যা ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সহায়তা করে। এছাড়াও ক্ষত রোধ করে।

পুষ্টির অভাব দূরঃ নিয়মিত সকাল করে কাচা বাদাম খেলে দেড় পুষ্টির অভাব দূর হয়। কারণ বাদামে উল্লেখিত সব উপাদানই শরীরের জন্য অনেক উপকারী। এবং ক্রনিক রোগ দূর করতে সাহায্য করে।

হাড়ের গঠন ও মাংসপেশী মজবুত রাখেঃ নিয়মিত কাঁচা বাদাম খেলে হাড় মজবুত,হয় হার ক্ষয় রোধ হয় কারণ বাদামে রয়েছে ফসফরাস যা হারের ক্ষমতা বৃদ্ধি করে। বাদামের প্রোটিন দেহ গঠনে ও মাংসপেশী তৈরি করতে সাহায্য করে।

কোলেস্টেরলের মাত্রাঃ নিয়মিত বাদাম খাওয়ার ফলে ভালো কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়ায় এবং খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমিয়ে দেয়। যার ফলে হার্টের রোগের আশঙ্কা কম থাকে।

ত্বকও চুলঃ ভিটামিন ই এবং ক্যারোটিন রয়েছে যা দেহের ত্বক এবং চুল সুন্দর রাখতে সহায়তা করে এবং শরীরের বয়স কমাতে সাহায্য করে।

ওজন নিয়ন্ত্রণঃ নিয়মিত কাঁচা বাদাম খেলে খিদে কম লাগে হলে বেশি খাওয়ার প্রবণতা কমে যায়। এর ফলে শরীরে অতিরিক্ত ক্যালরি জমে ওজন বৃদ্ধির সম্ভাবনা ও কম থাকে।

কোষ বৃদ্ধিঃ বাদামে রয়েছে ভিটামিন ই যা শরীরের প্রতিটি কোনায় ছড়িয়ে থাকা কোষের কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি ঘটায়। এর পাশাপাশি শরীরে ক্ষত হওয়ার রোধ করে।

কাঁচা বাদাম এ কি কি উপাদান রয়েছে

প্রতিদিন বাদাম খাওয়া স্বাস্থ্যর জন্য উপকারী। পুষ্টিগুণ এবং শরীরের উপকারের দিক দিয়ে দেখতে গেলে বাদামের কোন বিকল্প নেই। এবার জেনে নেওয়া যাক,বাদামের মধ্যে কি কি উপাদান রয়েছে।
  • প্রচুর পরিমাণে প্রোটিন
  • কালসিয়াম
  • ভিটামিন ই
  • ফাইভার
  • সেলেনিয়াম
  • ভিটামিন সি
  • অ্যান্টিঅক্সাইড
  • এমাইনো এসিড
  • পটাশিয়াম এবং
  • ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড

বাদাম খাওয়ার অপকারিতা

বাদাম শরীরের জন্য অনেক উপকারী যা আমরা কম বেশি সবাই জানি। তবে নিয়মের তুলনায় অতিরিক্ত বাদাম খেলে ক্ষতি হতে পারে। যেমন বাদামে উপকারী ফ্যাট থাকে তবে আপনি যদি বাদাম খাওয়ার ফলে ওজন বৃদ্ধি পায় ফলে যারা একটু বেশি স্বাস্থ্যকর তাদের জন্য না খাওয়ায় ভালো।
এছারা যাদের এলার্জির সমস্যা আছে বেশি পরিমাণ বাদাম খেলে তা বাড়তে পারে। ভাজা বাদাম অতিরিক্ত গেলে গ্যাসের সমস্যা হতে পারে। শুধু বাদাম না কোন কিছুই অতিরিক্ত খাওয়া উচিত না নিয়ম করে পরিমাণ মত খেতে হবে তাহলে শরীর সুস্থ্য থাকবে।

উপসংহার

বাদাম খেতে প্রায় সবারই ভালো লাগে। সবাই মিলে আড্ডায় বসলে বাদামই সবার পছন্দ । এমনকি যখন প্রিয়জন সাথে থাকে তখন বাদাম খেতে খেতে গল্প টাও বেশ ভালই জমে। এই বাদাম যে স্বাস্থ্যর জন্য অনেক উপকারী তা কিন্তু অনেকেই জানেনা। তাই সকালে কাঁচা বাদাম খাওয়ার উপকারিতা এই আর্টিকেলটি আপনাদের জন্যই লেখা হয়েছে। ভালো লাগলে অবশ্যই ড্রিমস সেফ ওয়েবসাইটের সাথেই থাকবেন ধন্যবাদ।

এই পোস্টটি পরিচিতদের সাথে শেয়ার করুন

পূর্বের পোস্ট দেখুন পরবর্তী পোস্ট দেখুন
এই পোস্টে এখনো কেউ মন্তব্য করে নি
মন্তব্য করতে এখানে ক্লিক করুন

ড্রিমসসেফ আইটিির নীতিমালা মেনে কমেন্ট করুন। প্রতিটি কমেন্ট রিভিউ করা হয়।

comment url